দশ লক্ষ চাকরি দেবে রিলায়েন্স রিটেল, তিন গুন বাড়বে ব্যবসা, ঘোষণা মুকেশ আম্বানির রিলায়েন্স রিটেল (Reliance Retail)

দশ লক্ষ চাকরি দেবে রিলায়েন্স রিটেল, তিন গুন বাড়বে ব্যবসা, ঘোষণা মুকেশ আম্বানির রিলায়েন্স রিটেল (Reliance Retail)

আরও ১৫০০ হাজার নতুন স্টোর খুলেছে৷ রিটেল ক্ষেত্রে গোটা দেশের মধ্যে যা সর্বোচ্চ৷ বর্তমানে রিলায়েন্স রিটেল-এর স্টোর সংখ্যা ১২,৭১১৷আগামী তিন বছরে দেশে আরও ১০ লক্ষ কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করবে রিলায়েন্স রিটেল৷ এ দিন রিলায়েন্স-এর বার্ষিক সাধারণ সভায় এমনই দাবি করলেন সংস্থার চেয়ারম্যান এবং ম্যানেজিং ডিরেক্টর মুকেশ আম্বানি৷ তাঁর দাবি, আগামী পাঁচ বছরে তিন থেকে পাঁচ গুণ বাড়বে রিলায়েন্স রিটেলের ব্যবসা৷

মুকেশ আম্বানি এ দিন বলেন, ‘করোনা অতিমারির এই কঠিন সময়েও রিলায়েন্স রিটেল নিজেদের কর্মীদের চাকরি সুরক্ষিতই রাখেনি বরং ৬৫ হাজার নতুন চাকরির সুযোগ করে দিয়েছে৷ এই মুহূর্তে রিলায়েন্স রিটেল-এর ২ লক্ষ কর্মচারী রয়েছে৷ ফলে আমরা এখন দেশে অন্যতম বৃহত্তম নিয়োগকারী সংস্থা৷ আগামী তিন বছরে রিলায়েন্স রিটেল দশ লক্ষেরও বেশি কর্মী নিয়োগ করবে৷ এর পাশাপাশি আরও বহু মানুষের উপার্জনের পথও তৈরি করে দেবে৷

আগামী তিন বছরে দেশে আরও ১০ লক্ষ কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করবে রিলায়েন্স রিটেল৷ এ দিন রিলায়েন্স-এর বার্ষিক সাধারণ সভায় এমনই দাবি করলেন সংস্থার চেয়ারম্যান এবং ম্যানেজিং ডিরেক্টর মুকেশ আম্বানি৷ তাঁর দাবি, আগামী পাঁচ বছরে তিন থেকে পাঁচ গুণ বাড়বে রিলায়েন্স রিটেলের ব্যবসা৷

মুকেশ আম্বানি এ দিন বলেন, ‘করোনা অতিমারির এই কঠিন সময়েও রিলায়েন্স রিটেল নিজেদের কর্মীদের চাকরি সুরক্ষিতই রাখেনি বরং ৬৫ হাজার নতুন চাকরির সুযোগ করে দিয়েছে৷ এই মুহূর্তে রিলায়েন্স রিটেল-এর ২ লক্ষ কর্মচারী রয়েছে৷ ফলে আমরা এখন দেশে অন্যতম বৃহত্তম নিয়োগকারী সংস্থা৷ আগামী তিন বছরে রিলায়েন্স রিটেল দশ লক্ষেরও বেশি কর্মী নিয়োগ করবে৷ এর পাশাপাশি আরও বহু মানুষের উপার্জনের পথও তৈরি করে দেবে৷ ‘

চলতি অর্থবর্ষে রিলায়েন্স রিটেল আরও ১৫০০ হাজার নতুন স্টোর খুলেছে৷ রিটেল ক্ষেত্রে গোটা দেশের মধ্যে যা সর্বোচ্চ৷ বর্তমানে রিলায়েন্স রিটেল-এর স্টোর সংখ্যা ১২,৭১১৷

মুকেশ আম্বানি বলেন, ‘গত বছর রিলায়েন্স রিটেল প্রতিদিন পাঁচ লক্ষ ইউনিট পোশাক বিক্রি করেছে৷ বছরে ১৮ কোটির বেশি পোশাক বিক্রি করা হয়েছে৷ যা সম্মিলিত ভাবে যুক্তরাজ্য, জার্মানি এবং স্পেনের জনসংখ্যার জন্য প্রয়োজনীয় পোশাকের সমান৷ ‘

চোখে পড়ার মতো বৃদ্ধি হয়েছে রিলায়েন্স রিটেল-এর ব্যবসায়৷ দৈনিক প্রায় ১ লক্ষ ২০ হাজার এবং বছরে সাড়ে চার কোটি ইলেক্ট্রনিক্স পণ্য বিক্রি করেছে সংস্থার এই শাখা৷

রিলায়েন্স রিটেল প্রতিদিন ৩০ লক্ষ নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রী বিক্রি করেছে৷ বাৎসরিক হিসেবে যা ১০০ কোটির বেশি৷ জিও মার্ট-এ একদিনে সর্বাধিক সাড়ে ৬ লক্ষ অর্ডার নথিভুক্ত হয়েছে৷

রিলায়েন্স রিটেল-এর কর্মীদের উদ্দেশে মুকেশ আম্বানি বলেন, ‘আমাদের ভাবনা খুবই সহজ৷ আমরা আপনাদের সবরকম সহযোগিতা করব যাতে আপনারা ক্রেতাদের আরও ভাল পরিষেবা দিতে পারেন৷ সেই কারণেই গার্হস্থ্য প্রয়োজনের সামগ্রীর অর্ডার তিন গুন বেড়েছে৷ নতুন অর্ডারের মধ্যে সময়ের ফারাকও দু’ গুণ কমেছে৷’

ব্যবসা বৃদ্ধির লক্ষ্যে মূলত পাঁচটি কৌশল নিয়েছে রিলায়েন্স রিটেল৷ ব্যবসা বৃদ্ধির জন্য গবেষণা, নকশা তৈরি এবং পণ্যের মান উন্নয়নের দিকে নজর দেওয়া হবে৷ স্থানীয় পণ্য উৎপাদক, জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক স্তরের ব্র্যান্ডগুলির সঙ্গে আরও নিবিড় ভাবে কাজ করা হবে৷ সংস্থার পণ্য পরিষেবা বিশ্বমানের করার জন্য গুদাম থেকে শুরু করে প্রয়োজনীয় পরিকাঠামো গড়ে তোলা হবে৷ আরও বেশি করে নতুন স্টোর খোলার পাশাপাশি তৈরি করা হবে ডেলিভারি হাব৷ সর্বোপরি সাম্প্রতিক কালে নেটমেডস, আর্বান ল্যাডার-এর মতো জনপ্রিয় ব্র্যান্ডগুলিকে অধিগ্রহণের যে কৌশল সংস্থা নিয়েছিল, তা বজায় রাখা হবে৷ মুকেশ আম্বানি বলেন, ‘রিটেল ব্যবসা যে অপ্রিতরোধ্য গতিতে এগোচ্ছে, তাতে আগামী তিন থেকে পাঁচ বছরে তা অন্তত তিন গুন বৃদ্ধি হবে৷’

 

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *